Back

★ জুন ২০১৭ পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমিধস

জুন ২০১৭ পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমিধস
                                     

★ জুন ২০১৭ পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমিধস

তিন দিনের প্রবল বর্ষণ ফলে 12 জুন 2017, সোমবার মধ্যরাত এবং 13 জুন, 2017 মঙ্গলবার ভোরে চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ ও তিন পার্বত্য জেলা রাঙামাটি, বান্দরবান ও খাগড়াছড়ি বিভিন্ন স্থানে 156 জন মারা যান. এবং সব 152 মানুষ তাদের জীবন হারিয়েছে. আহত হন কয়েক শত মানুষ. বৈরি আবহাওয়ার মধ্যে বিদ্যুৎ এবং তারা প্রয়োজন অ্যাক্সেস বিচ্ছিন্ন সময় উদ্ধারকর্মীদের পক্ষে পরে, মানুষ উদ্ধার করা কঠিন পড়া. পরে এবং অনুপস্থিত ট্র্যাক উপর সেনাবাহিনী, ফায়ার সার্ভিস কর্মী ও স্থানীয় লোকজন সম্মিলিতভাবে উদ্ধারকাজ পরিচালনা করা. পুরো এলাকায় তারা প্রয়োজন অ্যাক্সেস বিচ্ছিন্ন. বৃষ্টি উদ্ধার কার্যক্রম ব্যাহত হয়. রিয়াজ আহমেদ, বাংলাদেশ দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধান বলেন যে, দেশের ইতিহাসে এই ভূমিধস সবচেয়ে মারাত্মক ছিল.

                                     

1. দুর্যোগ কারণ. (Disaster because)

12 জুন, সকাল থেকে 343 মিলিমিটার 13.5 ইঞ্চি দ্বারা 24 ঘন্টা-দীর্ঘ বৃষ্টিপাত কারণে এই ভূমিধস সংগঠিত হয়. মৌসুমি জলবায়ু এবং নিম্নভূমি জন্য বঙ্গোপসাগর থেকে ঢাকা ও চট্টগ্রাম বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় ভারী বৃষ্টিপাত হয়. এই মৌসুমী জলবায়ুর কারণে প্রায় বন্যা দেখা দেয় এবং বাংলাদেশ দক্ষিণ দিকে পাহাড় ধ্বস হয়েছে.

Bonusare কারণ ধ্বংস সৃষ্ট হয়. নির্বিচারে কেটে বসতি স্থাপন করে, এবং বন-বন এবং গাছ ব্যবহারকারীদের, কারণ, চট্টগ্রাম ও পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটছে বলে মন্তব্য করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় মাটি ও দুর্যোগ বিশেষজ্ঞরা. উপজাতি নেতা বিজয় Giri চাকমা চ্যানেল NewsAsia জানি যে, গাছ কাটার কারণ অনেক টিলার পৃষ্ঠ এলাকা, ব্র্যান্ড ক্ষয় হয়ে গেছে, তিনি বলেন, এই ধরনের ভূমিধস আগে তিনি দেখা হয়.

দ্বিতীয় বিষয় ছিল, জমি, যেখানে প্রান্তিক এলাকায় দরিদ্র মানুষের জন্য জোড় কম Wi-Fi সংযোগ করে থাকতে বাধ্য করা হয়. বান্দরবান সরকারি প্রশাসন দিলীপ কুমার বণিক, প্রেস রিলিজ বলেন যে, মানুষ অনেক, পাবলিক সতর্কতা সত্ত্বেও পাহাড়ি ঢালু জমি, ঘর বাঁধা. কক্সবাজার এলাকায় সরকারী বর্ণনা 3.00.000 মানুষ ভূমিধস প্রবণ পর্বত বাস, গাড়ি. নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম কে বলেন, জেলা প্রশাসন ঝুঁকিপূর্ণ, ঘর, তালিকা প্রণয়ন, সরকারী অধ্যাদেশ জারি ও তাদের পুনর্বাসন নিয়ে আলোচনা করার জন্য.

                                     

2. বিবরণ

অংশ রাঙামাটি মধ্যে সবচেয়ে বেশি হতাহতের ঘটনা ঘটেছে আমার. মঙ্গলবার ভোর পাঁচ থেকে রাঙ্গামাটি শহরের বিভিন্ন এলাকায় অংশ শুরু হয়. সকাল 11 টার মধ্যেই ছয় ঘন্টার মধ্যে শহরের টালা, Rangapani, যুব উন্নয়ন, টিভি স্টেশন, রেডিও স্টেশন, রিজার্ভ বাজার, আরো বিকেলে এবং চেষ্টা এলাকা অংশ এ ঘটনা ঘটে.

                                     

3. রেসকিউ অপারেশন. (Rescue operation)

12 জুন, সোমবার রাত থেকে রাঙামাটি, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার বিভিন্ন স্থানে পাহাড়ি ঢলা ও ভূমিধসে ব্যাপক ক্ষতি প্রেক্ষাপটে রেসকিউ অপারেশন শুরু করে টহলরত সেনাবাহিনী, পুলিশ, জেলা প্রশাসন, সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবং বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মীরা.

13 জুন ভোরে রাঙ্গামাটি এর ম্যানিকিউর মধ্যে একটি পাহাড় ধ্বসে মাটিতে পড়ে এবং গাছ পড়ে চট্টগ্রাম-রাঙামাটি সড়ক বন্ধ হয়ে যায়. তাত্ক্ষনিক রাঙ্গামাটি আঞ্চলিক সদর দপ্তর নির্দেশ ম্যানিকিউর আর্মি ক্যাম্প থেকে সেনাবাহিনীর একটি দল সেখানে যায়. তারা রাস্তা যান চলাচল স্বাভাবিক করতে অদক্ষ শুরু করেন. অদক্ষ চলমান সময় সময় 11 টা দিকে পাহাড়ের একটি বড় অংশ উদ্ধার ব্যবহারকারীদের উপর ধসে পড়ে, তারা মূল সড়ক থেকে 30 ফুট নিচে পড়ে যান. পরে একই ক্যাম্প থেকে আরো একটি উদ্ধারকারী দল এসেছে, দুই সেনা কর্মকর্তা সহ চার সেনা নিহত এবং 10 ব্যক্ত আহত রাষ্ট্র সংরক্ষণ করে.

এই উদ্ধার অভিযান চলাকালে সেনাবাহিনীর দুই কর্মকর্তা ও দুই সৈন্য মারা যান. অংশ পাসে রাঙামাটি-চট্টগ্রাম হাইওয়ে চালু করতে করতে প্রাণ হারান তারা.

16 জুন, শুক্রবার বিকেলে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন মোহাম্মদ Manzurul একটি সংবাদ সম্মেলন করে উদ্ধার অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন. দুর্যোগ বেস ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় 156 জনের মৃত্যু নিশ্চিত করেছেন. রাঙ্গামাটি এ 110 জন, চট্টগ্রাম মধ্যে 23 জনের নামে পরিচিত ছয়, কক্সবাজার, দুই নারী ও খাগড়াছড়ি এক মানুষ হতাহত হয়. উপরন্তু, চট্টগ্রাম ঢলা মোটামুটি দূরে গাছ এবং গভীর, এবং বাজ পর মৃত্যু হয় আরো 14 জন.

                                     

4. প্রতিক্রিয়া. (Response)

ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন গিয়েছিলাম রাঙ্গামাটি অংশ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের জন্য জরুরী মুহূর্ত থেকে 50 মিলিয়ন রুপি, 100 মেট্রিক টন চাল এবং 500 বান্ডিল টিন সমর্থন ঘোষণা করেন সড়ক পরিবহন ও দেখেছিলেন ডেভিড ক্যামেরনের কাদের.

চট্টগ্রাম ও পার্বত্য তিন জেলায় অংশ ব্যাপক হতাহতের ঘটনার মধ্যে ঢাকা, ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত পিয়েরে তৈরি গভীর শোক জানা প্রয়োজন, এই প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রভাব ত্রাণ ইইউ সহযোগিতা করতে প্রস্তুত.

Users also searched:

জুন ২০১৭ পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমিধস, ২০১৭-এ বাংলাদেশ. জুন ২০১৭ পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমিধস,

...

Encyclopedic dictionary

Translation
Free and no ads
no need to download or install

Pino - logical board game which is based on tactics and strategy. In general this is a remix of chess, checkers and corners. The game develops imagination, concentration, teaches how to solve tasks, plan their own actions and of course to think logically. It does not matter how much pieces you have, the main thing is how they are placement!

online intellectual game →