ⓘ Free online encyclopedia. Did you know? page 317




                                               

বাংলাদেশ: রক্তের ঋণ

বাংলাদেশ: রক্তের ঋণ হল একটি বাস্তবধর্মী বই যাতে সাংবাদিক অ্যান্থনি মাসকারেনহাস ১৯৭১ সাল থেকে ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের ইতিহাস লিপিবদ্ধ করেছেন। বইটিতে স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশে অভ্যুত্থান ও ৭১ এর রক্তাক্ত অভ্যুত্থানের ইতিহাস রয়েছে। বইটি মূলত বা ...

                                               

বাংলাদেশে সামরিক অভ্যুত্থান

৩রা নভেম্বরের অভ্যুত্থানে খালেদ মোশাররফ রক্তপাতহীন অভ্যুত্থান ঘটাতে চেয়েছিলেন। তাই মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমানকে তার নিজ বাসভবনে গৃহবন্দী করে রাখেন। কর্নেল অবঃ আবু তাহের সে সময় চট্টগ্রামে অবস্থান করছিলেন। কর্নেল তাহের ছিলেন জিয়াউর রহমানের একজন ...

                                               

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সামরিক পরিকল্পনা

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের আগে, পূর্ব পাকিস্তানে ভারতের বড় আকারের সামরিক পদক্ষেপ নেওয়ার কোনও পরিকল্পনা ছিল না। ১৯৬২-এর চীন-ভারত যুদ্ধেপর থেকে, ভারতীয় সেনা পূর্ব কমান্ডের প্রাথমিক লক্ষ্য ছিল ভারতের উত্তর ও পূর্ব সীমান্ত, শিলিগুড়ি করিডো ...

                                               

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস যা ২৬শে মার্চ তারিখে পালিত বাংলাদেশের জাতীয় দিবস। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের জনগণ আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের স্বাধীনতার সংগ্রাম শুরু করে। ২৭ মার্চ জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পক্ষে চট ...

                                               

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ বা মুক্তিযুদ্ধ হলো ১৯৭১ সালে তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানের বিরুদ্ধে পূর্ব পাকিস্তানে সংঘটিত একটি বিপ্লব ও সশস্ত্র সংগ্রাম। পূর্ব পাকিস্তানে বাঙালি জাতীয়তাবাদের উত্থান ও স্বাধিকার আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় এবং বাঙালি গণহত্যা ...

                                               

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে গণকবরের তালিকা

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে বাংলাদেশে ইতিহাসের নৃশংসতম গণহত্যা চালানো হয়। ২৫শে মার্চের কালোরাতে পাকিস্তান সামরিক বাহিনী পরিচালনা করে অপারেশন সার্চলাইট নামক ধ্বংসযজ্ঞ। বাংলাদেশের স্বাধীনতা লাভের পূর্ব পর্যন্ত চলে তাদের এই গণহত্যা এবং ধ্বংশজজ্ঞ। এই ...

                                               

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষক

পাকিস্তান থেকে পূর্ব পাকিস্তানের স্বাধীনতার ঘোষণা যিনি দিয়েছিলেন তাকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষক বলা হয়ে থাকে। শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষক। মুজিবেপর আওয়ামী লীগ নেতা এম. এ. হান্নান এবং ততকালীন সময়ের মেজর জিয়াউর রহমান স্বাধীনত ...

                                               

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র বলতে ২৬শে মার্চ প্রথম প্রহরে শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক স্বাধীনতার ঘোষণাবার্তা ও প্রবাসী বাংলাদেশ সরকার বা মুজিবনগর সরকার কর্তৃক ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল তারিখে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষিত অন্য একটি ঘোষণাপত্রকে বোঝায়। যতদিন বা ...

                                               

বাংলার প্রধানমন্ত্রী

বাংলার প্রধানমন্ত্রী ব্রিটিশ ভারতে অবিভক্ত বাংলার প্রধানমন্ত্রীর পদ ছিল। ভারত শাসন আইন ১৯৩৫ এর আওতায় এই পদ সৃষ্টি করা হয়। বঙ্গীয় আইন পরিষদের সাথে নেতার সাথে একই সময় এটির অবস্থান ছিল। ব্রিটিশ ভারতে বাংলার প্রধানমন্ত্রী একটি প্রভাবশালী পদ ছিল। ...

                                               

বাংলার প্ৰাচীন জনপদসমূহ

প্ৰাচীনযুগে বাংলা নামে কোনো অখণ্ড রাষ্ট্ৰ ছিল না। বাংলার বিভিন্ন অংশ তখন বঙ্গ, পুণ্ড্ৰ, গৌড়, হরিকেল, সমতট, বরেন্দ্ৰ এরকম প্ৰায় ১৬টি জনপদে বিভক্ত ছিল।বাংলার বিভিন্ন অংশে অবস্থিত প্ৰাচীন জনপদগুলোর সীমা ও বিস্তৃতি সঠিকভাবে নির্ণয় করা অসম্ভব। কেনন ...

                                               

বাংলার শাসকগণ

নিচে প্রাচীনকাল থেকে আজ পর্যন্ত বৃহত্তর বাংলা বা বঙ্গ অঞ্চলের শাসকগণের একটি তালিকা দেয়া হল। ঐতিহাসিক দলিলপত্র থেকে স্পষ্ট যে বাংলা মূলত অঙ্গদের অধীনে ছিল। পরবর্তীতে এর অধিকাংশ এলাকা মগধ সাম্রাজ্যের অধীনে আসে। মগধ সাম্রাজ্যের পতনেপর বাংলা কিছুকাল ...

                                               

মির্যা আগা মুহম্মদ বাকের

মির্যা আগা মুহম্মদ বাকের ছিলেন একজন পারসিক অভিজাত। তিনি তৎকালীন বরিশাল জেলার প্রধান অংশ বুযুর্গ উমেদপুর এবং সলিমাবাদ পরগনার জমিদার ছিলেন। মুঘল আমলের এ-দুটি পরগনা বৃহত্তর বরিশাল জেলার বিশাল অংশে বিস্তৃত ছিল। বাকের ছিলেন নবাব সরফরাজ খানের অধীনে উড় ...

                                               

বারো ভূঁইয়া

বারো ভুঁইয়া, মোগল সম্রাট আকবর-এর আমলে বাংলার বিভিন্ন অঞ্চল শাসনকারী কতিপয় জমিদার বা ভূস্বামী, বারো জন এমন শাসক ছিলেন, যাঁদেরকে বোঝানো হতো বারো ভূঁইয়া বলে। আবার অনেকের অনুমান যে অতি প্রাচীনকালে হয়তো বাংলায় বারো সংখ্যক শক্তিশালী সামন্তরাজা ছিল ...

                                               

দ্বিতীয় বিগ্রহপাল

রাজা দ্বিতীয় বিগ্রহপাল ছিলেন পাল রাজবংশের দশম রাজা। তিনি ছিলেন পাল রাজা দ্বিতীয় গোপালের পুত্র এবং পিতার মৃত্যুপর তিনি পিতার স্থলাভিষিক্ত হন। তিনি মোট ২২ বছর রাজত্ব করেন। পাল রাজবংশের হারানো গৌরব ও প্রতিপত্তি পুনরুদ্ধারকারী খ্যাতিমান ১ম মহিপাল ছ ...

                                               

বিবি মরিয়ম মসজিদ

বিবি মরিয়ম মসজিদ বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ জেলার কিল্লারপুলে অবস্থিত একটি মসজিদ যেটি মুগল স্থাপত্যশৈলীর অনন্য নিদর্শন। বর্তমানে মসজিদটি কিল্লারপুল শাহী জামে মসজিদ নামে পরিচিত।

                                               

বেঙ্গল প্যাক্ট

বেঙ্গল প্যাক্ট একটি চুক্তি যা ১৯২৩ খ্রিষ্টাব্দে বাংলার মুসলিম ও হিন্দুদের মধ্যে সাম্প্রদায়িক পার্থক্যজনিত সমস্যা সমাধানকল্পে সম্পাদিত হয়েছিল। চুক্তির উদ্যোক্তা দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশ মুসলিমদের সাথে হিন্দুদের রাজনৈতিক অংশীদারত্বের পক্ষপাতী ছিলে ...

                                               

বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি

বাংলা প্রেসিডেন্সি, সরকারিভাবে ফোর্ট উইলিয়ামের প্রেসিডেন্সি এবং পরবর্তীকালে বাংলা প্রদেশ ছিল ব্রিটিশ ভারতের একটি প্রশাসনিক বিভাগ। অতীতে এই প্রেসিডেন্সির এক্তিয়ারভুক্ত এলাকার যে সর্বাধিক বিস্তৃতি ঘটেছিল, তার মধ্যে অধুনা দক্ষিণ ও দক্ষিণপূর্ব এশিয ...

                                               

ভাটি অঞ্চল

ভাটি অঞ্চল-যেখানে ছয় মাস পানি আর বাকি ছয় মাস শুকনো মৌসুম। বাংলাদেশের সুনামগঞ্জ, সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোণা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া-এই সাতটি জেলার ৪০টি উপজেলা জুড়ে ভাটি অঞ্চল বিস্তৃত। পুরো অঞ্চলে সুতোর মতো জড়িয়ে রয়েছে অসংখ্য ...

                                               

ভারত বিভাজন

ভারত বিভাজন বা দেশভাগ হল ব্রিটিশ ভারতের রাজনৈতিক বিভাজন। ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট ব্রিটিশ ভারত ভেঙে হয়ে পাকিস্তান অধিরাজ্য ও ভারত অধিরাজ্য নামে দুটি সার্বভৌম রাষ্ট্র গঠন করা হয়। পাকিস্তান পরবর্তীকালে আবার দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পাকিস্তান ও বাংলাদেশ নামে ...

                                               

ভারতের সাধারণ নির্বাচন, ১৯২৩

১৯২৩ সালে সাধারণ নির্বাচন কেন্দ্রীয় বিধানসভা পরিষদ ও প্রাদেশিক পরিষদ উভয়ের জন্য ব্রিটিশ ভারতের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়। সেন্ট্রাল লেজিসলেটিভ এসেম্বলির ১৪৫টি আসন ছিল যার মধ্যে ১০৫টি জনসাধারণের দ্বারা নির্বাচিত হয়েছিল।

                                               

ভারতের সাধারণ নির্বাচন, ১৯২৬

ভারতের সাধারণ নির্বাচন ১৯২৬, ব্রিটিশ ভরতে ২৮শে আক্টোবর ১৯২৬ থেকে নভেম্বরের শেষের দিকে আনুষ্ঠিত হয়েছিল। এ নির্বাচনের মাধ্যমে ইম্পেরিয়াল লেজিসলেটিভ কাউন্সিল ও প্রাদেশিক লেজিসলেটিভ কাউন্সিলের জন্য সদস্য নির্বাচন করা হয়েছিল। বঙ্গ ও মাদ্রাজে স্বরাজ ...

                                               

ভারতের সাধারণ নির্বাচন, ১৯৩০

ভারতের সাধারণ নির্বাচন ১৯৩০, ব্রিটিশ ভারতে সেপ্টেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। নির্বাচনটি ভারতের জাতীয় কংগ্রেস বয়কট করেছিল এবং জনগণ এতে অনীহা প্রকাশ করেছিল। নবনির্বাচিত কেন্দ্রীয় বিধানসভা পরিষদ প্রথমবারের মত ১৪ই জানুয়ারি ১৯৩১ সালে সম্মেলনে উপস্ ...

                                               

ভারতের সাধারণ নির্বাচন, ১৯৩৪

ভারতের সাধারণ নির্বাচন, ব্রিটিশ ভারতে ১৯৩৪ সালে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। নির্বাচনে ভারতের জাতীয় কংগ্রেস কেন্দ্রীয় বিধানসভা পরিষদের সবচেয়ে বৃহত্তম দল হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিল। ১৯৩৪ সালের নির্বাচনে মোট নির্বাচক ছিলেন ১,৪১৫,৮৯২ জন যাদের মধ্যে ১,১৩৫,৮৯৯ জ ...

                                               

ভারতের সাধারণ নির্বাচন, ১৯৪৫

সাধারণ নির্বাচন ১৯৪৫, ব্রিটিশ ভারতে কেন্দ্রীয় বিধানসভা পরিষদ ও রাজ্য পরিষদের সদস্য নির্বাচনের জন্য অনুষ্ঠিত হয়েছিল। নির্বাচনে ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস ১০২টি নির্বাচনী আসনের মধ্যে ৫৯টি আসন লাভ করেছিল। মুসলিম লীগ মুসলিম অধ্যুষিত সকল আসন লাভ করেছিল ...

                                               

ভাষা আন্দোলন দিবস

ভাষা আন্দোলন দিবস বাংলাদেশে পালিত একটি জাতীয় দিবস। ১৯৫২ সালে তদানীন্তন পূর্ব বাংলায় আন্দোলনের মাধ্যমে বাংলাকে রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা দেয়ার লক্ষ্যে যারা শহীদ হয় তাদের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শনের জন্য এই জাতীয় দিবসটি পালন করা হয়।

                                               

ভীমনালি গণহত্যা

১৯২১ সালের ২২ শে মে স্থানীয় সহযোগীরা বাংলাদেশের বরিশাল জেলার নালি গ্রামে আক্রমণ করে। বাঙালি হিন্দু গ্রামবাসীরা বর্শা নিয়ে প্রতিরোধ করেছিল। তবে তারা সহযোগীদের দ্বারা পরাভুত হয়, এবং তারা ১৫ জন গ্রামবাসীকে গুলি করে হত্যা করেছিল।

                                               

ময়মনসিংহের ইতিহাস

ময়মনসিংহ মধ্য বাংলাদেশে অবস্থিত একটি বিস্তৃত অঞ্চল। ১৯৭০ খ্রিষ্টাব্দ অবধি ময়মনসিংহ জেলা ছিল বাংলাদেশের বৃহত্তম জেলা। অন্যদিকে ময়মনসিংহ শহরটি বাংলাদেশের প্রাচীনতম শহরগুলোর মধ্যে অন্যতম। বাংলা সাহিত্যের অনেক প্রাচীন পুস্তকেও এই শহরের নামোল্লেখ দ ...

                                               

মীর জুমলা

তিনি নিজে ব্যবসায়ী হওয়ায় দেশের অর্থনীতিতে ব্যবসা বাণিজ্যের অবদান সম্পর্কে সচেতন ছিলেন। তার আমলে পর্তুগীজদের ব্যবসার অবনতি ঘটে। তবে ওলন্দাজ ও ইংরেজ কোম্পানিগুলোর উত্থান ঘটে । তিনি ইউরোপীয়সহ বিদেশি বণিকদের রাজকীয় ফরমানে প্রদত্ত সুবিধা গ্রহণে স ...

                                               

মুক্তিবাহিনী

মুক্তিবাহিনী হলো ১৯৭১ সালের বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ নেয়া বাঙালি সেনা, ছাত্র, ও সাধারণ জনতার সমন্বয়ে গঠিত একটি সামরিক বাহিনী। ২৬শে মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণাপর ধীরে ধীরে সাধারণ বাঙ্গালীদের এই বাহিনী গড়ে ওঠে। পরবর্তীতে এপ্রিল মাসের ...

                                               

মুঘল সাম্রাজ্য

মুঘল বা মোগল সাম্রাজ্য), ছিল ভারত উপমহাদেশের একটি সাম্রাজ্য। প্রায় দুই শতাব্দী ধরে সাম্রাজ্য পশ্চিমে সিন্ধু অববাহিকার বাইরের প্রান্ত, উত্তর-পশ্চিমে আফগানিস্তান এবং উত্তরে কাশ্মীর, পূর্বে বর্তমান আসাম ও বাংলাদেশের উচ্চভূমি এবং দক্ষিণ ভারতের ডেকান ...

                                               

মুজিবনগর দিবস

মুক্তিযুদ্ধের কিছুদিনের মধ্যেই ১৯৭১ সালের ১০ই এপ্রিল গঠিত হয় বাংলাদেশের প্রথম প্রবাসী সরকার, যা মুজিবনগর সরকার নামে পরিচিত। ১৭ই এপ্রিল মেহেরপুর জেলার বৈদ্যনাথতলা বর্তমান উপজেলা মুজিবনগর গ্রামের আমবাগানে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার শপথ গ্রহণ ক ...

                                               

মুহররমের হাঙ্গামা

মুহররমের হাঙ্গামা বা ১৭৮২-এর সিলেটের সংঘর্ষ হচ্ছে একটি বিদ্রোহ যা সিলেটে ঘটেছিল| সিলেটের পীরজাদা এবং তার দুই ভাই সৈয়দ মুহাম্মদ হাদি ও সৈয়দ মুহাম্মদ মাহদী নেতৃত্বে সিলেটি মুসলমানদের দ্বারা ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির বিরুদ্ধে এটি সংঘটিত হয়। এটি ভার ...

                                               

মোবারক আলী খান (বাংলার নবাব)

সাইয়িদ মোবারক আলী খান, মুবারক উদ-দৌলা নামে পরিচিত, বঙ্গ, বিহার এবং উড়িষ্যার নবাব ছিলেন । তিনি মীর জাফর ও বাব্বু বেগমের ছেলে। ১৭৭০ সালের ১০ মার্চ তার অর্ধ-ভাই আশরাফ আলী খানের মৃত্যুপর ১৭৭০ সালের ২১ মার্চ তিনি সিংহাসনে আরোহণ করেন। মুবারক আলী খান ...

                                               

যুক্তফ্রন্ট

পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় পরিষদের ১৯৫৪ খ্রিস্টাব্দের নির্বাচনে মুসলিম লীগকে ক্ষমতাচ্যুত করার লক্ষ্যে অন্যান্য দল মিলে যুক্তফ্রন্ট নামীয় একটি সমন্বিত বিরোধী রাজনৈতিক মঞ্চ গঠন করার উদ্যোগ নেয়া হয়। ১৪ নভেম্বের,১৯৫৩ সালে যুক্তফ্রন্ট গঠনের সিদ্ধান্ত ন ...

                                               

যুগান্তর দল

যুগান্তর দল গুপ্ত বিপ্লববাদী সংস্থা। চরম পন্থার মাধ্যমে ইংরেজদের থেকে দেশের স্বাধীনতা অর্জন করাই ছিল এই সংগঠনের প্রধান লক্ষ্য। অনুশীলন সমিতির সাথে মতভেদের কারণে যুগান্তর এর জন্ম। এর নেতৃত্বে ছিলেন অরবিন্দ ঘোষ, বারীন্দ্রকুমার ঘোষ, উল্লাসকর দত্ত প্ ...

                                               

রক্ষীবাহিনীর সত্য-মিথ্যা

রক্ষীবাহিনীর সত্য-মিথ্যা কর্নেল আনোয়ার উল আলম রচিত একটি বই যা শেখ মুজিবুর রহমানের শাসনামলে জাতীয় রক্ষীবাহিনীর বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের সন্ধান করে লিখিত। সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশে ১৯৭২ সালের প্রথম দিকে সরকার মুক্তিবাহিনীর সদস্যদের নিয়ে গঠন করেছিল জাতীয ...

                                               

রাজমহলের যুদ্ধ

রাজমহলের যুদ্ধ মুঘল সাম্রাজ্য ও বাংলা সালতানাতের মধ্যে সংঘটিত হয়। এই যুদ্ধেপর বাংলা সালতানাতের পতন হয়।

                                               

রাজশাহীতে ওলন্দাজ বসতি

১৮ শতকের সময় বাংলার রাজশাহীতে ডাচ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির একটি কেনাবেচার স্থল বিদ্যমান ছিল। ইউরোপীয়দের মাঝে ওলন্দাজরাই প্রথম এখানে বসতি গড়ে তোলে। পদ্মা নদীর তীরে তাদের কেনাবেচার কেন্দ্র ছিল এবং এতে রেশম ও নীল উতপাদনের কারখানা অন্তর্ভুক্ত ছিল। ...

                                               

লজ্জা (উপন্যাস)

লজ্জা বাংলাদেশী ঔপন্যাসিক ও নারীবাদী লেখিকা তসলিমা নাসরিন রচিত একটি উপন্যাস। উপন্যাসটি একাধিক ভাষায় অনূদিত হয়েছে। ১৯৯৩ সালে প্রথম প্রকাশিত এই বইটি বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। মৌলবাদী ইসলামি দল কর্তৃক জীবনের হুমকি পেয়ে তসলিমা নাসরিন স্বদেশ ...

                                               

শাহ মোস্তফা

সৈয়দ শাহ মোস্তফা আল-বাগদাদী, শাহ মোস্তফা নামে পরিচিত, সিলেট অঞ্চলের একজন সুফি মুসলিম ব্যক্তিত্ব। মোস্তফার নাম মৌলভীবাজারে ইসলাম প্রচারের সাথে যুক্ত, যা মধ্য প্রাচ্য, মধ্য এশিয়া এবং দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যবর্তী দীর্ঘ ইতিহাসের অংশ। তিনি ১৩০৩ সালে শাহ ...

                                               

শাহ সুলতান বলখী মাহিসাওয়ার

শাহ সুলতান বলখী বা শাহ সুলতান বলখী মাহিসাওয়ার একাদশ শতাব্দির মুসলিম ধর্ম প্রচারক তিনি পুণ্ড্রবর্ধন এবং সন্দ্বীপ ইসলাম প্রচার করেছিলেন। অন্য এক সূত্রে জানা যায়, ইতিহাসবিদ প্রভাষ চন্দ্র সেন রচিত ‘বগুড়ার ইতিহাস’ ১৯১২ সালে প্রকাশিত গ্রন্থে উল্লেখ ...

                                               

শাহবাগ হোটেল

শাহবাগ হোটেল ছিল ঢাকার প্রথম তিন তারকামানের হোটেল। হোটেলটির স্থপতি ছিলেন ইংরেজ এডোয়ার্ড হাইক্স ও নকশা করেছিলেন রোনাল্ড ম্যাককেনেল। এর অবস্থান ছিল শাহবাগ মোড়ের পূবালী ব্যাংকের পিছনে। পূবালী ব্যাংকের ভবনটি সেসময় মুসলিম লীগের কার্যালয় হিসেবে ব্য ...

                                               

শাহী বাংলা

বাংলা সালতানাত বা শাহী বাংলা ছিল মধ্যযুগের বাংলায় একটি মুসলিম স্বাধীন রাষ্ট্র। যা চতুর্দশ শতাব্দী থেকে ষোড়শ শতাব্দী পর্যন্ত টিকে ছিলো। এর রাজধানী ছিল বিশ্বের বৃহত্তম শহরগুলির মধ্যে একটি। যার অধীন রাষ্ট্র ছিল দক্ষিণ-পশ্চিমে ওড়িশা, দক্ষিণ-পূর্বে ...

                                               

শিহাবউদ্দিন বায়েজিদ শাহ

শিহাবউদ্দিন বায়েজিদ শাহ ছিলেন ইলিয়াস শাহি রাজবংশের সুলতান। তিনি এক বছরের মত সংক্ষিপ্ত সময় সুলতান ছিলেন। তিনি তার পিতা সাইফউদ্দিন হামজা শাহর উত্তরাধিকারী হন। শিহাবউদ্দিন বায়েজিদ শাহ তার পূর্বসূরিদের মত চীনের সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখেন। তিনি চী ...

                                               

সরফরাজ খান

সরফরাজ খান ছিলেন বাংলার দ্বিতীয় নবাব এবংং জাহাঙ্গীরনগরের পঞ্চম নায়েব নাজিম। তার আসল নাম মির্জা আসাদুল্লাহ। সরফরাজ খানের নানা নবাব মুর্শিদ কুলি খান সরফরাজকে বাংলা, বিহার ও উড়িষ্যার নবাব হিসেবে তাঁর উত্তরাধীকারী মনোনীত করেন। ১৭২৭ সালে মুর্শিদ কু ...

                                               

সশস্ত্র বাহিনী দিবস (বাংলাদেশ)

সশস্ত্র বাহিনী দিবস সাংবার্ষিকভিত্তিতে ২১ নভেম্বর বাংলাদেশে পালন করা হয়। ১৯৭১ সালের এই দিনে বাংলাদেশের সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনী সম্মিলিতভাবে মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানি বাহিনীর বিরুদ্ধে আক্রমণের সূচনা করে। অতঃপর ১৬ ডিসেম্বর, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ-ভারতের ...

                                               

সাতই মার্চের ভাষণ

সাতই মার্চের ভাষণ ১৯৭১ খ্রিষ্টাব্দের ৭ই মার্চ ঢাকার রমনায় অবস্থিত রেসকোর্স ময়দানে অনুষ্ঠিত জনসভায় শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক প্রদত্ত এক ঐতিহাসিক ভাষণ। তিনি উক্ত ভাষণ বিকেল ২টা ৪৫ মিনিটে শুরু করে বিকেল ৩টা ৩ মিনিটে শেষ করেন। উক্ত ভাষণ ১৮ মিনিট স্ ...

                                               

সিমলা চুক্তি ১৯৭২

চুক্তিকৃত পক্ষসমুহ ও সময়- ভারত ও পাকিস্তান, ১৯৭২ সিমলা চুক্তি সালে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে সঙ্ঘটিত যুদ্ধের শেষে সম্পাদিত একটি শান্তিচুক্তি। ১৯৭১ সালের এ যুদ্ধে ছিল তিনটি পক্ষ: ভারত, পাকিস্তান ও মুক্তিবাহিনী। ১৯৭১-এ বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সমাপ ...

                                               

সিলেট বিজয়

সিলেট বিজয় বা শ্রীহট্ট বিজয়, এমন একটি ইসলামিক বিজয় বোঝায় যা অনেক ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র রাজ্যের সমন্বয়ে গঠিত শ্রীহট্ট অঞ্চলে সংঘটিত হয়েছিল। আরো ব্যাপক অর্থে, এই যুদ্ধ লখনৌতি কেন্দ্রিক বাংলা সালতানাতের স্বাধীন সুলতান শামসুদ্দিন ফিরোজ শাহ এবং মধ্যযু ...

                                               

সিলেটের ইতিহাস

বৃহত্তর সিলেট অঞ্চল প্রধানত বাংলাদেশের সিলেট বিভাগ এবং ভারতের আসামের করিমগঞ্জ জেলা, কাছাড় এবং হাইলাকান্দি জেলা জুড়ে বিস্তৃত। সিলেট অঞ্চলের ইতিহাস শুরু হয় সেই অঞ্চলে বিস্তৃত বাণিজ্যিক কেন্দ্রগুলির অস্তিত্ব দিয়ে যা এখন সিলেট শহর। ঐতিহাসিকভাবে শ ...